অামাদের সম্পর্কে জানতে নিচের লেখাটি পড়ুন

উম্মাতে মুহম্মাদ - আদর্শে ফুরকান

এটি ইসলামিক সংঘ, যার কাজ মানুষকে ধর্ম সম্পর্কে সচেতন করা এবং বিভিন্ন ধরনের সমাজ সংস্কারমূলক কাজ পরিচালনা করা । বর্তমানে এটি বরিশাল বিভাগের ...

ব্লগের লেখা:

উম্মুআফ: উম্মাতে মুহম্মাদ - আদর্শে ফুরকান



‘‘বিছমিল্লাহি রাহমানের রাহীম’’
‘‘উম্মুআফ’’

পরম দয়ালু করুনাময় আল্লাহর নামে আরম্ভ করিলাম। ‘‘উম্মাতে মুহম্মাদ জাতিতে মুসলীম দ্বীনে ইসলাম’ ‘‘দিকর্দশ ফোরকান’’ অর্থাৎ ‘উম্মাতে মুহম্মাদ আর্দশে ফোরকান’’ তথা ‘‘উম্মুআফ’’

 আমরা মুসলমান এটা আমাদের পরম সৌভাগ্য, আল্লাহর পক্ষ্য থেকে আমাদের জন্য অনেক বড় নেয়ামত। তাই লাখো শুকুরিয়া পরম করুনাময় রহমানের রাহিম আল্লাহর পাক দরবারে। আল্লাহ তোমার অপার মহিমার সহয়তা চাই এ বান্দার প্রতি তুমি নেগাবান হও। সমস্ত প্রসংশা তোমারই জন্য।
সৃষ্টির শুরু থেকে যুগে যুগে নবী রাছুলগন পৃথিবীতে এসেছিলেন আল্লাহর এই জমীনে আল্লাহর বিধানকে কায়েম করার জন্যে। মুসলম আমরা ইব্রাহীম আ: এর বংস ধর তথা রাছুল সা: এর উম্মত হিসেবে আমরা কতটুকু দ্বায়িত্ব পালন করতে পেরেছি, তা কারও অজানা নয়? বাংলাদেশ বিশ্বের তৃতীয় মুসলীম প্রধান দেশ। কিন্তু অত্যামত্ম পরিতাপের বিষয় যে, এদেশে সংখ্যা গরিষ্ঠ মুসলমান বাস করেও মুসলমান হিসেবে আল্লাহ প্রদত্ত আল্লাহর বিধানের, আমাদের উপর অরপিত দ্বায়িত্ব যথাযত ভাবে পালন ও মান্য করিতে সক্ষম হইনি। এত বছর পড়েও এই উপমহাদেশে কোরআনের বিধান অনুযায়ী সঠিক ভাবে একটি রাষ্ট্র ব্যবস্থা পরিচালনা করিতে সক্ষম হয় নাই। এর কারন কি? এর একমাত্র কারন এটাই, সমস্ত মুসলমান ভাই ভাই, হুজুর পাক সা: আর্দশের বাণী এবং সংঘবদ্ধ ভাবে আল্লাহর রজ্জুকে আঁকড়ে ধর কোরআনের এই  নির্দেশ কে ভুলে গিয়ে পরস্পর বিচ্ছিন্ন হয়ে পরেছি। এবং মুসলমান সমাজের বুকে বিভিন্ন প্রকার ফেৎনা-ফ্যাসাদে জড়িয়ে বিভিন্ন প্রকার মতভেদের সৃষ্টি করে নিজেরাই নিজেদের ক্ষতির কারন হয়ে পড়েছি! এদেশের মুসলমানদের ঘুম কি কখনও ভাংঙবে না? সারা বিশ্বে মুসলমানরা কি কখনও সচেতন হবে না? আর কত দিন মুসলমান ইহুদী নাছাড়া কাপালিকদের হিংস্র থাবায় নিপতিত হবে ? এভাবে চলতে পারে না! ফেরাউনী চক্র-ইহুদী নাছাড়ার হিংস্র থাবা সন্ত্রাসী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে পৃথিবীর মুসলমানকে এক হতেই হবে?
আমাদের দেশ তথা সারা বিশ্বের বর্তমানে আইন শৃংখোলা পরিস্থিতির যে অবনতি এবং যে অসুস্থিকর পরিবেশ বিরাজ করছে, খুন-র্ধ্বষণ রাহা জানি, সন্ত্রাসী কার্য্য কলাপ ইত্যাদিতে ছেয়ে গেছে এদেশ তথা সারা বিশ্ব? এই র্দু’দিনে সকল ব্যক্তি স্বার্থ, মতভেদ, দন্ধ ভুলে শুধু মুসলমান পরিচয়, দেশের তথা বিশ্বের সকল মুসলমান এবং ইসলামী দলগুলোকে এক জোট হয়ে ‘‘উম্মুআফ’’ এর মাধ্যমে আল্লাহ প্রদত্ত বিধান অনুযায়ী একটি পূর্ণাঙ্গ ইসলামী দল গঠন করে, ইসলামীদেশ, ইসলামী সরকার প্রতিষ্ঠা করার দৃঢ় সংকল্প করতে হবে। কারন সকল মানুষের জন্য শামিত্মর একটাই পথ, আল্লাহর আইন এবং রাছুলের সা: আর্দশ। যা শুধু বাংলাদেশ নয় সারা বিশ্বকে অফুরামত্ম শামিত্ম প্রতিষ্ঠাতা উপহার দিতে পারে।
তাই আমি দেশের সকল ইসলামী দলকে অনুরোধ করিতেছি আশুন আপনারা আপনাদের সকল মতভেদ ভুলে সকল ইসলামী দলের নেতাগণ অবশ্যই একটি সিদ্ধামেত্ম উপনীত হতে হবে। যদি একটি সিদ্ধামেত্ম উপনিত হতে না পারেন, তাহলে এদেশে পূর্ণাঙ্গ একটি ইসলামী রাষ্ট্র গঠন অনেক কঠিন ব্যাপার। তাই আমি সকলের প্রতি আল্লাহর দোহাই দিয়ে বিশেষ অনুরোধ করছি সকল ইসলামী দলের ঐক্য মতের বিত্তিতে বর্তমান যার যার দল নাম করন বাদ দিয়ে (বিলুপ্তি ঘোষনা দিয়ে নূতন একটি ইসলামী ‘‘উম্মাতে মুহম্মাদ আর্দশে ফোরকান’’ অর্থাৎ ‘‘উম্মুআফ’’ দল নামকরন ঘোষনা করে সকলে এক জোট হয়ে কাজ করুন। তাতে বাংলাদেশের সমস্ত মুসলমান একই নবীর উম্মতে মুহম্মাদ হিসাবে তাদের ধর্ম একই, দ্বীন-ইসলামের ছায়াতলে সমবেত হতে পারবে এবং ধর্মের আর্দশ ফোরকানের বা কোরআনের বাস্তব রূপ দান করতে সক্ষম হবে, তাতে আল্লাহ তা’য়ালা খুঁশি হবেন এবং নবী সা: সমেত্মষ্ঠ হবেন। এদেশের তথা বিশ্বের সুখ শামিত্ম ফিরে আসবে। আমরা যদি তাই পারি সারা বিশ্বের মুসলমান আমাদের অনুস্বরন করবে। আমরা বিশ্বের কাছে একটি আর্দশ মুসলিম দেশ হিসেবে পরিগনিত হব। আল্লাহর দেয়া বিধান পেয়ে এদেশের মানুষ শামিত্মতে বাসকরবে।
তাই বাংলাদেশে একটি পূর্ণাঙ্গ দ্বীণ-ইসলামী সরকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য সকল ইসলামী দলের নেতাসহ প্রত্যেক মুসলমান ভাইদের প্রতি উদত্ত্ব আহবান জানাচ্ছি, আর দলা দলি নয়- হানা-হানি নয়, একে অন্যকে তৃস্কার আর কাঁদা ছোড়া ছুড়ি না করে, সকল মুসলমান ভাই ভাই এই হাদীসের আলোকে এবং সুরা আল-ইমরানে ৩:১০৩ আয়াতের আলোকে-

অর্থ:
‘‘তোমরা সবাই একমাত্র আল্লাহর রজ্জু একত্রে মজবুতভাবে আঁকড়ে ধর, তোমরা বিচ্ছিন্ন হয়ো না

তোমরা স্বরন কর- আল্লাহ যে নিয়ামত তোমাদেরকে দান করেছেন- যখন এক অন্যের দুশমন ছিলে, কিন্তু  আল্লাহ তোমাদের মনে আর্কষন পয়দা করলেন। তাঁরই নিয়ামতের ফলে-একে অন্যের ভাইরূপে গন্য হলে। অথচ তোমরা অগ্নিকুন্ডের কিনারায় দাঁড়িয়ে ছিলে। আল্লাহ তোমাদেরকে তা থেকে বাঁচিয়েছেন-আল্লাহ এমনি করে বিসত্মারিতভাবে সব হুকুম তোমাদের জন্যে বুঝিয়ে দিচ্ছেন-যেন ঠিক পথে এগিয়ে যেতে পার।’’ সংঙ্ঘ বদ্ধ ভাবে আল্লাহর রজ্জুকে আঁকড়ে ধর শক্তভাবে পবিত্র কোরআনের এই নির্দেশ মোতাবেক আমরা সব মতো দন্দ্ব ভুলে গিয়ে আসুন আমরা সবাই একই ‘‘উম্মুআফ’’ এর দল ভুক্ত হয়ে যাই। আর আল্লাহর জমিনে আল্লাহ প্রদত্ত বিধান আল-কোরআনের আইন বাস্তবায়ীত করি। আল্লাহ আমাদের ঐক্য বদ্ধ হওয়ার তৈফিকদান করুন। তাহলে আমরা সবাই আল্লাহর রহমতে অবশ্যই মুক্তি পাব। আল্লাহ আমাদের প্রচেষ্টাকে কবুল করন আমিন ।
                                 আহবায়ক- আলহাজ্ব সৈয়দ আমজাদ হোসেন।
                                               বীরপ্রতিক মুক্তি যোদ্ধা
                                               বাইও.মেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার
                   বিশিষ্ট ইসলামীক চিমত্মবীদ,আত্নিক/তাত্বীক সাধক ও গবেষক।
                                    তারিখ-৩০/৫/২০০৩ইং ,জেদ্দা, সৌদি আরব।



Copyright @ 2013-15 উম্মাতে মুহম্মাদ - আদর্শে ফুরকান.